আপনার গবাদি পশুর খামারের জন্য কিভাবে পুষ্টিকর খাদ্য তালিকা তৈরি করবেন?

বর্তমানে অনেকেই গবাদি পশুর খামার গরেছেন কিন্তু গবাদিপশুর খামারের জন্য পুষ্টিকর খাদ্যের তালিকা সম্পর্কে তেমন জানা নেই। আমাদের দেশে গবাদিপশু পালন করে অনেকেই বেকারত্ব দূর করে স্বাবলম্বী হচ্ছেন।

গবাদিপশু পালনে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে গবাদিপশুর খামারের জন্য পুষ্টিকর খাদ্যের তালিকা। আসুন জেনে নেই গবাদিপশুর খামারের জন্য পুষ্টিকর খাদ্যের তালিকা সম্পর্কে-

গবাদিপশুর দানাদার খাদ্যঃ

গবাদিপশুর দানাদার খাদ্যের মধ্যে বিভিন্ন প্রকার ডাল জাতীয় শস্যদানা ও শস্যদানার উপজাত রয়েছে যেমন- গমের ভুসি, খৈল, চালের কুঁড়া, ডালের ভুসি ইত্যাদি।

কাঁচা ঘাসঃ

গবাদিপশুকে উচ্চমান সম্পন্ন কাঁচা ঘাস ১০-১৫ কেজি খাওয়াতে হবে। এতে গবাদিপশুর পুষ্টি চাহিদা অনেকটাই পূরণ হবে।

খড়ঃ

গবাদিপশুর পুষ্টি চাহিদা পূরণে ৩ থেকে ৪ কেজি খড় খেতে দিতে হবে।

প্রোটিন সমৃদ্ধ খাদ্যঃ

গবাদিপশুর পুষ্টি চাহিদা পূরণে ১৮%-২০% প্রোটিন সমৃদ্ধ দানাদার খাদ্যের মিশ্রন ২ থেকে ৩ কেজি সরবরাহ করতে হবে।

আঁশ জাতীয় খাদ্যঃ

গবাদিপশুর শুষ্ক আঁশ জাতীয় খাদ্যে শতকরা ১০ থেকে ১৫ ভাগ পানি বা জলীয় অংশ থাকে যেমনঃ বিভিন্ন প্রকার খড়। রসালো আঁশ জাতীয় খাদ্যে শতকরা ৭০ থেকে ৮৫ ভাগ পানি বা জলীয় অংশ থাকে যেমনঃবিভিন্ন গাছের পাতা, মাসকলাই, খেসারী, কাঁচা ঘাস, লতাগুল্ম ইত্যাদি।

ফিড সাপ্লিমেন্ট/প্রিমিক্সঃ

গবাদিপশুর ফিড সাপ্লিমেন্ট ভিটামিন মিনারেল প্রিমিক্স, এমানো এসিড, অর্গানিক এসিড, এনজাইম ইত্যাদি।

খনিজ উপাদানঃ

গবাদিপশুর খাদ্যের খনিজ উপাদান হচ্ছে লবন, লাইমস্টোন, মনো-ক্যালসিয়াম ফসফেট, ডাই-ক্যালসিয়াম ফসফেট ইত্যাদি।

গাভীর সুষম খাদ্যঃ

গাভিকে দৈনিক প্রয়োজন অনুপাতে খড়, কাঁচা ঘাস ও দানাদার খাদ্যের মিশ্রন সরবরাহ করতে হবে।

তথ্যসূত্রঃ আধুনিক কৃষি খামার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *