জ্যাম-জেলি এবার তৈরি করুন আপনার হেঁসেলেই, রইলো ৭ টি অসাধারণ রেসিপি

সকাল বেলার নাস্তার টেবিলে রুটির সাথে সকলেই খেয়ে থাকেন জেম-জেলি। কিছুটা নিরুপায় হয়েই সকলে এই বাহিরের তৈরি জ্যাম- জেলি খেয়ে থাকি। তবে এখন আর বাহিরের এই সকল জ্যাম- জেলি আর খেতে হবে না। এবার আপনার হেঁসেলেই তৈরি হবে মজাদার এই রেসিপি। তো চুলুন যেনে নেই এই রকম মজাদার ৭ টি জ্যাম- জেলির রেসিপি।

আনারস জ্যাম

উপকরণ:

আনারসের পাল্প ৩ কাপ,

অ্যাগার অ্যাগার দেড় চা-চামচ,

সাইট্রিক অ্যাসিড আধা চা-চামচ,

আদাবাটা ১ চা-চামচ,

চিনি সাড়ে তিন কাপ,

সোডিয়াম বেনজয়েট সিকি চা-চামচ,

আনারস এসেন্স ১ চা-চামচ,

লবণ আধা চা-চামচ।

প্রণালি:

আনারস দুই ভাগ করে কাঁটা চামচ দিয়ে কেচে নিন। অথবা ব্লেন্ড করে নিন। এবার চিনিসহ চুলায় সেদ্ধ দিন। সঙ্গে আদা ও লবণ দিয়ে দিন। অ্যাগার অ্যাগার গরম পানি দিয়ে ১০ মিনিট ভিজিয়ে আনারসের মিশ্রণে ঢেলে দিন। আনারস যখন ঘন থকথকে হয়ে আসবে, তখন চুলা থেকে নামিয়ে সোডিয়াম বেনজয়েট, সাইট্রিক অ্যাসিড ও পাইনঅ্যাপল এসেন্স দিয়ে মিশিয়ে দিন। এবার নামিয়ে বয়ামে ঢেলে সংরক্ষণ করুন।

মেস্তার জ্যাম

উপকরণ:

মেস্তা ফল ২ কাপ,

চিনি ২ কাপ,

পানি ৪ কাপ।

প্রণালি:

মেস্তার পাপড়িগুলো ছাড়িয়ে ভালোভাবে ধুয়ে ৩ কাপ গরম পানি দিয়ে চুলায় বসান। ফুটে উঠলে পানি ঝরিয়ে আবার ১ কাপ পানি দিয়ে চুলায় অল্প আঁচে বসান। গলে গেলে চিনি দিয়ে জ্বাল দিন। মেস্তা গলে না গেলে আরও একটু পানি দিন। চিনি গলে ঘন জ্যামের মতো হলে নামিয়ে বোতলে সংরক্ষণ করুন। প্রিজারভেটিভ না দিলে এটি ৪/৫ দিন ভালো থাকবে। অনেক দিন সংরক্ষণ করতে চাইলে আধা চা-চামচ করে সোডিয়াম বেনজয়েট ও পটাসিয়াম মেটাবাইসালফাইট দিতে হবে।

সিনথেটিক জেলি

উপকরণ:

চায়না গ্রাস এক কাপ,

সোডিয়াম বেনজয়েট সিকি চা-চামচ,

অরেঞ্জ ইমালশন পৌনে এক চা-চামচ,

অরেঞ্জ ওয়েল ১ চা-চামচ,

অরেঞ্জ সুইট এসেন্স আধা চা-চামচ,

পানি ১ লিটার,

চিনি ১ কেজি,

সাইট্রিক অ্যাসিড দেড় চা-চামচ।

প্রণালি: চায়না গ্রাস কুচি করে ১ কাপ মেপে নিন। ২ কাপ পানি দিয়ে ১৫ মিনিট ভিজিয়ে রেখে চুলায় বসান মৃদু আঁচে। যখন চায়না গ্রাস গলে যাবে, তখন পাত্রটি গরম পানির বাটিতে আবার ডুবিয়ে রাখতে হবে। না হলে এই মিশ্রণ আবার জমে যাবে। অন্য পাত্রে পানি ও চিনি মেপে চুলায় জ্বাল দিন। এই পানি জ্বাল দিতে দিতে এক-তৃতীয়াংশ হয়ে গেলে চায়না গ্রাসের মিশ্রণ দিয়ে আবার জ্বাল দিন। চায়না গ্রাসের মিশ্রণ যখন শুকিয়ে প্রায় অর্ধেক হলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন। ১০ মিনিট পর এ থেকে আধা কাপ নিয়ে তাতে বাকি সব উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে পুরোটা জেলির পাত্রে ঢেলে দিন। খুব ভালোভাবে নেড়ে মিশিয়ে গরম-গরম বোতলে ভরে রাখুন। ঠান্ডা হলে মোম গলিয়ে দিয়ে ঢাকনা বন্ধ করে দিতে হবে।

কমলা মারমালেড

উপকরণ:

কমলার রস ২ কাপ,

মালটার রস ২ কাপ,

চায়না গ্রাস কুচি ১ কাপ,

সাইট্রিক অ্যাসিড ১ চা-চামচ,

চিনি ৪ কাপ,

কমলার খোসা ২ টেবিল চামচ,

সোডিয়াম বেনজয়েট সিকি চা-চামচ,

অরেঞ্জ ইমালশন আধা চা-চামচ,

অরেঞ্জ অয়েল আধা চা-চামচ।

প্রণালি: চায়না গ্রাস ২ কাপ পানি দিয়ে ১৫ মিনিট গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। তারপর মৃদু আঁচে গলিয়ে নিন। কমলার খোসা লম্বা পাতলা কুচি করে সেদ্ধ করতে দিন। পানি ঝরিয়ে অল্প চিনি দিয়ে জ্বাল দিয়ে শুকিয়ে নিন। কমলা ও মালটার রস চিনি দিয়ে চুলায় বসান। কমলা ও চিনির শিরা ঘন হয়ে এলে চায়না গ্রাসের মিশ্রণ ঢেলে জ্বাল দিন। মোটামুটি ঘন হয়ে এলে কমলার খোসাগুলো দিয়ে নামিয়ে নিন। বাকি সব উপকরণ মিশিয়ে গরম-গরম বয়ামে ভরে ঠান্ডা করে নিন। ওপরে মোমের স্তর দিয়ে সংরক্ষণ করতে পারেন।

মিশ্র ফলের জ্যাম

উপকরণ:

পছন্দের নানা রকম ফলের পাল্প (আম, পেঁপে, আনারস, কমলা, মালটা, আপেল, আঙুর ইত্যাদি) ১ কেজি,

চিনি ১ কেজি,

অ্যাগার অ্যাগার দেড় চা-চামচ,

সাইট্রিক অ্যাসিড দেড় চা-চামচ,

ম্যাঙ্গো ইমালশন সিকি চা-চামচ,

ম্যাঙ্গো সুইট এসেন্স আধা চা-চামচ,

অরেঞ্জ ওয়েল ১ চা-চামচ,

অরেঞ্জ ইমালশন ১ চা-চামচ,

পটাশিয়াম মেটাবাইসালফাইট সিকি চা-চামচ।

প্রণালি: ফলের পাল্প হাঁড়িতে ঢেলে দিয়ে চিনি দিয়ে মাঝারি আঁচে জ্বাল দিন। অ্যাগার অ্যাগার আধা কাপ পানি দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন। চিনি গলে গিয়ে ফলের রসের সঙ্গে মিশে গেলে ভেজানো অ্যাগার অ্যাগার দিয়ে নাড়ুন। ঘন হয়ে জমে এলে নামিয়ে সাইট্রিক অ্যাসিড ও অন্য উপকরণগুলো আধা কাপ জ্যামের মিশ্রণে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এবার এটি পুরো জ্যামের মধ্যে দিয়ে নাড়ুন। এবার গরম-গরম বোতলে সংরক্ষণ করুন।

পেয়ারার জেলি

উপকরণ:

পাকা পেয়ারার রস ৪ কাপ,

চিনি ৪ কাপ,

অ্যাগার অ্যাগার আড়াই চা-চামচ,

সাইট্রিক অ্যাসিড ১ চা-চামচ,

পটাশিয়াম মেটাবাইসালফাইট সিকি চা-চামচ।

প্রণালি: পাকা পেয়ারা কেটে সেদ্ধ করে ছেঁকে নিন। নাড়া দেওয়া যাবে না। অ্যাগার অ্যাগার আধা কাপ পানি দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন ১০ মিনিট। পেয়ারার রস আবার ছেঁকে চিনি দিয়ে জ্বাল দিন। শিরা ঘন হলে ভেজানো অ্যাগার অ্যাগার দিয়ে জ্বাল দিন। রস যখন এক-তৃতীয়াংশ শুকিয়ে যাবে, তখন সাইট্রিক অ্যাসিড ও পটাশিয়াম মেটাবাইসালফাইট দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে গরম-গরম বোতলে সংরক্ষণ করুন।

মিশ্র ফলের জেলি

উপকরণ:

আম, আনারস, পেঁপে, কমলা, মালটা, আপেল ইত্যাদি ফলের রস দেড় কেজি,

চিনি দেড় কেজি,

অ্যাগার অ্যাগার আড়াই চা-চামচ, পটাশিয়াম মেটাবাইসালফাইট সিকি চা-চামচ,

সাইট্রিক অ্যাসিড দেড় চা-চামচ,

অরেঞ্জ ওয়েল ১ চা-চামচ, ম্যাঙ্গো ইমালশন সিকি চা-চামচ,

সুইট ম্যাঙ্গো এসেন্স আধা চা-চামচ,

অরেঞ্জ ইমালশন আধা চা-চামচ,

সুইট অরেঞ্জ এসেন্স আধা চা-চামচ।

প্রণালি: সব ফল খোসা ছাড়িয়ে সামান্য পানি দিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন। পাতলা মার্কিন কাপড়ে দুই দফা ছেঁকে নিন। অ্যাগার অ্যাগার আধা কাপ গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। ফলের রস ও চিনি চুলায় ফোটান। চিনি গলে গেলে অ্যাগার অ্যাগার দিন। জ্বাল দিতে দিতে যখন অর্ধেক হয়ে আসবে, তখন নামিয়ে বাকি সব উপকরণ দিয়ে ভালোভাবে নাড়ুন। এবার নামিয়ে গরম-গরম বোতলে ভরে সংরক্ষণ করুন।

তথ্যসূত্রঃ মজার রান্না

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *