সবার প্রিয় ইলিশ মাছের মজাদার ১৪ টি রেসিপি একসাথে 

ইলিশ মাছ,নাম শুনলেই জিভে জল আসবেই। গরম ভাত ও তার সঙ্গে ইলিশ মাছ, তা সে ভাজাই হোক বা সর্ষে ইলিশ হোক বা ইলিশের পাতুরি, এর থেকে উপাদেয় খাবার আর কিছুই হতে পারে না। বর্ষাকালে সাধারণত এই মাছটি পাওয়া যায়। ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, মায়ানমারে নদীতে এই মাছ পাওয়া যায়। ইলিশ মাছ সাধারণত বিদেশেও রপ্তানি করা হয়। এই মাছটিকে জলের রুপোলি শস্য বলা হয়ে থাকে।

ইলিশ মাছ বিভিন্ন দেশে খাওয়া প্রচলিত থাকলেও এই মাছটি বাঙালীদের মধ্যে সবথেকে বেশি প্রচলিত। খাদ্যরসিক বাঙালীর ইলিশ প্রীতির কথা নতুন করে বলে দেওয়ার অপেক্ষা রাখে না। ইলিশ মাছের প্রকৃত স্বাদ গ্রহণ বাঙালীর রন্ধনের দ্বারাই সম্ভব। ভাপা ইলিশ, দই ইলিশ, ইলিশ মাছ ভাজা, ইলিশ মাছের ঝোল, ইলিশ পাতুরি ,আরো কত কি আছে বাঙালীর রন্ধন প্রণালীতে। এইরকমই  ১৪ টি  সেরা ইলিশ মাছের রেসিপি নিয়ে আজকের আলোচনা।

১। ইলিশ পোলাও

উপকরণ

পোলাও এর চাল ৫০০ গ্রাম, ইলিশ মাছ ১২ টুকরা, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১/২ চা চামচ, টকদই ১ কাপ, লবণ স্বাদমতো, দারচিনি ২ টুকরা, এলাচ ৪টি, পেঁয়াজ বাটা ৩/৪ কাপ, পেঁয়াজ স্লাইস আধা কাপ, পানি ৪ কাপ, কাঁচামরিচ ১০টি, চিনি ১ চা চামচ, তেল আধা কাপ।

যেভাবে করবেন

দুটি বড় ইলিশ মাছের আঁশ ছাড়িয়ে ধুয়ে মাঝের অংশের টুকরোগুলো নিন। এবার মাছের টুকরোগুলোতে আদা, রসুন, লবণ ও দই মেখে ১৫ মিনিট মেরিনেট করে রাখুন।

একটি পাত্রে তেল গরম করে দারচিনি, এলাচ দিয়ে নেড়ে বাটা পেঁয়াজ দিয়ে মসলা কষান। মসলা ভালো করে কষানো হলে মাছ দিয়ে কম আঁচে ২০ মিনিট ঢেকে রান্না করুন। মাঝে চিনি ও ৪টি কাঁচামরিচ দিয়ে একবার মাছ উল্টে দিন। পানি শুকিয়ে তেল ওপর উঠলে নামিয়ে নিন। মাছ মশলা থেকে তুলে নিন। অন্য পাত্রে ২ টেবিল চামচ তেল গরম করে স্লাইস করা পেঁয়াজ সোনালী করে ভেজে বেরেস্তা করে নিন। বেরেস্তা তুলে নিয়ে চাল দিয়ে নাড়ুন। মাছের মশলা দিয়ে চাল বিছুক্ষণ ভেজে পানি ও স্বাদমতো লবণ দিয়ে ঢাকুন। পানি শুকিয়ে এলে মৃদু আঁচে ১৫ মিনিট রাখুন। চুলা থেকে নামান।একটি বড় পাত্রে পোলাও এর ওপর মাছ বিছিয়ে বাকি পোলাও দিয়ে মাছ ১০ মিনিট ঢেকে রাখুন। পরিবেশন পাত্রে ইলিশ পোলাও নিয়ে ওপরে পেঁয়াজ বেরেস্তা দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

২। দই ইলিশ

উপকরণ

ইলিশ ১০ টুকরা (মাছের টুকরোগুলো লবণ মাখিয়ে ধুয়ে রাখুন), তেল আধা কাপ, পেঁয়াজবাটা আধা কাপ, হলুদগুঁড়া আধা চা চামচ, কাঁচা মরিচবাটা ১ চা-চামচ, টকদই ১ কাপ, আদাবাটা আধা চা-চামচ, লবণ পরিমাণমতো, চিনি আধা চা-চামচ।

প্রণালী

কড়াইয়ে তেল গরম করে সব মসলা দিয়ে কষিয়ে নিন। এবার দই দিয়ে নেড়ে মাছের টুকরোগুলো দিন। চুলার আঁচ একেবারে কমিয়ে ঢেকে দিন। ১৫-২০ মিনিট পর তেল ভেসে উঠলে চিনি দিয়ে নামিয়ে নিন।

৩। ইলিশ কাবাব

উপকরণ

ইলিশ মাছ আস্ত ১টি, গোলমরিচগুঁড়া ১ টেবিল-চামচ, পেঁয়াজকুচি আধা কাপ, কাঁচা মরিচকুচি ১ টেবিল-চামচ, টমেটো সস ২ টেবিল-চামচ, আলু ম্যাশড্ ১ কাপ, ধনেপাতাকুচি ২ টেবিল-চামচ, রসুন ২ কোয়া(কুচি), লেবুর রস ১ টেবিল-চামচ, লবণ স্বাদমতো, তেল আধা কাপ, পেঁয়াজ বেরেস্তা আধা কাপ, লেবুর খোসা (গ্রেট করা) কোয়ার্টার চা-চামচ, টোস্ট বিস্কুটের গুঁড়া ১ কাপ

প্রণালী

মাছের মাথা ও লেজ কেটে আলাদা করুন। সামান্য হলুদ, মরিচগুঁড়া ও পরিমাণমতো লবণ দিয়ে মাথা ও লেজ হালকা ভেজে নিন। এবার বাকি মাছ লবণ, লেবুর রস ও সামান্য পানি দিয়ে সেদ্ধ করে কাঁটা বেছে নিন।

কড়াইতে তেল গরম করে রসুন ও পেঁয়াজকুচি হালকা ভেজে মাছের কিমা দিয়ে নাড়তে থাকুন। দু-এক মিনিট পর সেদ্ধ আলু দিয়ে কিছুক্ষণ রান্না করে, একে একে গোলমরিচগুঁড়া, কাঁচা মরিচকুচি, স্বাদমতো লবণ, টমেটো সস দিয়ে রান্না করে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন। অন্য একটি প্যানে সামান্য তেল দিয়ে বিস্কুটের গুঁড়া বাদামী করে ভেজে নিন। এবারে রান্না করা কিমার সঙ্গে ধনেপাতাকুচি, লেবুর খোসা ও বেরেস্তা ভেঙে আলতো করে মেখে নিন।

সার্ভিং ডিশে দুই পাশে ভাজা লেজ ও মাথা রেখে, মাঝখানে মাখানো কিমা সাজিয়ে আস্ত মাছের মতো বানিয়ে নিন। সাজানো কিমার ওপর ভাজা বিস্কুটের গুঁড়া ছড়িয়ে চেপে দিন। কিমার ওপর চা-চামচ দিয়ে মাছের আঁশের মতো বানিয়ে পরিবেশন করুন।

৪। ইলিশ মাছের পাতুরি

উপকরণ

ইলিশ মাছ ৪ টুকরো, সর্ষে বাটা পরিমান মতো, কাঁচা লঙ্কা ৫টি ৬ টি, সর্ষের তেল, হলুদ গুঁড়ো, লবন স্বাদ অনুযায়ী, কলাপাতা, সূতো (কলাপাতা মোড়ার জন্য)।

প্রণালী

প্রথমে একটি পাত্রে পরিমান মতো সর্ষে বাটা, পরিমান মতো তেল, লবন, হলুদ ও অল্প কিছু লঙ্কা কুঁচি দিয়ে ভালো করে একটি মিশ্রণ বানিয়ে নিন। এবার আর একটি পাত্রে ইলিশের সাথে এই মিশ্রণটি ভালো করে মাখিয়ে নিন। এবার পাত্রটিকে ২০ মিনিট ঢেকে রাখুন। এবার কলাপাতাটিকে চারটি বড়ো টুকরো করে কেটে নিন। এমন ভাবে কাটুন যাতে প্রতি টুকরো দিয়ে ইলিশ মাছের টুকরোগুলোকে মোড়ানো যেতে পারে। এবার কলাপাতাগুলোকে আগুনের তাপে রাখতে হবে যাতে ও গুলি নরম হয়ে যায় এবং সহজেই মোড়ানো যায়।

এবার একটি কলাপাতার টুকরো নিন, তাতে ভালো করে তেল মাখিয়ে নিন। এবার তাতে আগে থেকে সর্ষে দিয়ে মাখিয়ে রাখা একটি ইলিশ মাছের টুকরো রাখুন। এরপরে একটি বা দুটি কাঁচা লঙ্কা চিরে রেখে দিন। এবার কলাপাতাটিকে ভালো করে মুড়িয়ে সুতো বেঁধে নিন। একই ভাবে বাকি মাছের টুকরো গুলিকে কলাপাতায় মুড়িয়ে নিন।

এবার একটি তাওয়া, বা পাত্র গ্যাসে গরম করে নিন এরপর তাতে অল্প সর্ষের তেল দিয়ে এক একটি করে কলাপাতায় মোড়ানো ইলিশ রাখুন। এবার তাওয়া বা পাত্রটি ঢেকে দিন। এবার অল্প আঁচে রান্না হতে দিন। ১০ মিনিট পর ঢাকনা সরিয়ে কলাপাতা মোড়া অবস্থায়  ইলিশগুলিকে  উল্টে দেখুন। যদি একদিক কালো হয়ে যায় তবে তা উল্টে দিন। আবার ঢেকে দিন। আরও পাঁচ মিনিট রান্না হতে দিন। গ্যাস বন্ধ করুন। ইলিশ মাছের পাতুরি তৈরি। এবার গরম ভাতে কলাপাতা মোর ইলিশ মাছের পাতুরি পরিবেশন করুন।

৫। ইলিশ মাছের ঝোল

উপকরণ

ইলিশ মাছ ৪ থেকে ৬ টুকরো।( মাথা ও লেজ বাদ দিয়ে ), হলুদ গুঁড়ো, লবন স্বাদ অনুযায়ী, সর্ষের তেল, একটি মাঝারি মাপের বেগুন সমান টুকরো করে কাটা, মাঝারি মাপের একটি আলু সমান টুকরো করে কাটা, জিরা গুঁড়ো ১/২ চা চামচ, ধনে গুঁড়ো ১/২ চা চামচ, কালোজিরে ১/২ চা চামচ, খোসা ছাড়ানো সর্ষে বাটা ১ বড়ো চামচ, কাঁচা লঙ্কা ৫ থেকে ৬ টি।

প্রণালী

প্রথমে মাছের টুকরোগুলিকে হালকা করে জলে ধুয়ে নিন। এরপর অল্প হলুদ ও লবন দিয়ে ম্যারিনেট করে নিন। কড়াইতে তেল গরম করে ইলিশ মাছ গুলি হালকা করে ভেজে নিন। এবার একই তেলে বেগুন ও আলু অল্প লবন দিয়ে ভাঁজতে থাকুন। পরিমান মতো হলুদ গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো ও জিরা গুঁড়ো ও ৩ -৪ চামচ জল দিয়ে একটি পেস্ট বানিয়ে নিন। যখন বেগুন ও আলু ভালো করে ভাজা হবে তখন এই মিশ্রণটি কড়াইতে ঢেলে দিন। মিশ্রণটি আলু ও বেগুনের সাথে ভালো করে নেড়ে চেড়ে মিশিয়ে দিন। যখন দেখবেন এই সবজিগুলো থেকে তেল আলাদা হয়ে আসছে তখন পরিমান মতো জল ও লবনা দিয়ে মিশিয়ে নিন। এরপর আগে থেকে ভেজে রাখা ইলিশ মাছের টুকরোগুলি কড়াইতে ঢেলে দিন। কড়াইটি ঢেকে দিন। গ্যাসের আঁচ কম করে দিন। যতক্ষন না আলু ও বেগুন নরম হচ্ছে ততক্ষন ঢেকে রাখুন। মোটামুটি ১৫ মিনিট পর রান্না হয়ে গেলে গ্যাস বন্ধ করে দিন।

এবার একটি আলাদা পাত্রে তেল গরম করুন। তেল গরম হয়ে গেলে তাতে কাঁচা লঙ্কা এবং কালোজিরা দিয়ে রান্না করা ইলিশ মাছ ঝোল সমেত এই গরম পাত্রটিতে খুব সাবধানে ঢেলে দিন। এবার এতে একচামচ খোসা ছাড়ানো সর্ষে বাটা দিন ও আরো ৫ মিনিট ফুটতে দিন। লবন স্বাদমতো হলে গ্যাস বন্ধ করুন।

৬। লেবুপাতায় ইলিশ ভুনা

উপকরণ: ইলিশ মাছ, মাথা, ডিমসহ ছোট করে কাটা ২ কাপ, লেবুপাতা ৫-৬টি, পেঁয়াজকুচি ১ কাপ, কাঁচা মরিচ ফালি ৫-৬টি, হলুদগুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচগুঁড়া ১ চা-চামচ, জিরাগুঁড়া আধা চা-চামচ, তেল আধা কাপ, লবণ পরিমাণমতো, লেবুর রস ১ টেবিল চামচ, চিনি ১ চা-চামচ, টমেটো সস ২ টেবিল চামচ।

প্রণালি: তেল গরম করে পেঁয়াজ ভাজতে হবে। পেঁয়াজ নরম হলে সমস্ত মসলা কষিয়ে টমেটো সস দিয়ে মাছ দিয়ে কিছুক্ষণ ভুনে ১ কাপ পানি দিতে হবে। ঝোল কমে এলে চিনি, লেবুর রস, কাঁচা মরিচ, লেবুপাতা পর্যায়ক্রমে দিয়ে নামাতে হবে।

৭। ইলিশ মাছের মালাইকারি

উপকরণ: ইলিশ মাছ মাঝারি আকারের ১টি, টক দই সিকি কাপ, নারকেলের দুধ ২ কাপ, আদা বাটা ১ চা-চামচ, জিরা বাটা আধা চা-চামচ, পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ, কাঠবাদাম বাটা ১ টেবিল চামচ, কিশমিশ বাটা ১ টেবিল চামচ, হলুদগুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচগুঁড়া ১ চা-চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি ৪-৫টি, পেঁয়াজকুচি ১ কাপ, পেঁয়াজ বেরেস্তা সিকি কাপ, লবণ পরিমাণমতো, চিনি ২ চা-চামচ, তেল পৌনে এক কাপ।

প্রণালি: তেল গরম করে পেঁয়াজ ভাজতে হবে। পেঁয়াজ নরম হলে সমস্ত বাটা মসলা, গুঁড়া মসলা কষিয়ে মাছ টক দই ও লবণ দিয়ে কিছুক্ষণ ভুনে নারকেলের দুধ দিয়ে দিন। ঝোল কমে এলে চিনি, কাঁচা মরিচ দিয়ে কিছুক্ষণ চুলায় রেখে বেরেস্তা দিয়ে নামাতে হবে ইলিশ মাছের মালাইকারি।

৮।অরেঞ্জ ইলিশ

উপকরণ :

১. ইলিশ মাছ ৮ টুকরা, ২. কমলা লেবুর রস ৩ কাপ, ৩. পেঁয়াজবাটা ২ টেবিল-চামচ, ৪. তেল কোয়ার্টার কাপ, ৫. লবণ পরিমাণমতো, ৬. চিনি আধা চা-চামচ, ৭. মরিচগুঁড়া আধা চা-চামচ, ৮. হলুদগুঁড়া সামান্য, ৯. কমলার খোসা (গ্রেট করা) ১ টেবিল-চামচ

প্রণালি :

বাটিতে পরিমাণমতো লবণ ও সামান্য হলুদ, মরিচগুঁড়া মাখিয়ে মাছের টুকরোগুলো ১৫ মিনিট রেখে দিন। কড়াইতে তেল গরম করে মাছগুলো হালকা ভেজে তুলে নিন। এবার ভাজা তেলে একে একে সব মসলা দিয়ে একটু ভুনে নিন। এবারে কমলার রস ও কমলার খোসা দিয়ে ভালোভাবে ফুটিয়ে মাছ দিয়ে অল্প আঁচে ঢেকে দিন। ১৫-২০ মিনিট পর নামিয়ে নিন।

৯। ময়ানে ভাজা ইলিশ

উপকরণ :

১. ইলিশ মাছের টুকরা ৬টি, ২. ময়দা ২ টেবিল-চামচ, ৩. মরিচগুঁড়া আধা চা-চামচ, ৪. কাঁচা মরিচবাটা আধা চা-চামচ, ৫. লবণ পরিমাণমতো, ৬. লেবুর রস ১ চা-চামচ, ৭. হলুদগুঁড়া সামান্য, ৮. ডিম ১টি, ৯. ব্রেড ক্রাম আধা কাপ, ১০. ভাজার জন্য তেল পরিমাণমতো

প্রণালি :

ব্রেড ক্র্যাম ও ডিম বাদে সব মাখিয়ে মাছের টুকরোগুলো ১ ঘণ্টা রেখে দিন। কড়াইতে তেল গরম করুন। ডিম ফেটে নিয়ে, মাছের টুকরোগুলো ডিমে ডুবিয়ে, ব্রেড ক্রাম গড়িয়ে ডুবো তেলে সোনালি রঙ করে ভেজে নিন।

১০। লেবু ইলিশ

উপকরণ :

১. ইলিশ মাছ ৬-৭ টুকরা, ২. পেঁয়াজবাটা ১ কাপ, ৩. তেল আধা কাপ, ৪. হলুদ সামান্য, ৬. আস্ত কাঁচা মরিচ ফালি ৪-৫টি, ৭. লবণ পরিমাণমতো, ৮. লেবুর রস কোয়ার্টার কাপ, ৯. আদাবাটা ১ চা-চামচ, ১০. লেবুর খোসা (গ্রেট করা) আধা চা-চামচ

প্রণালি :

লেবুর খোসা বাদে সব উপকরণ মাখিয়ে মাছের টুকরোগুলো ৩০ মিনিট রেখে দিন। মেরিনেট করা মাছ মৃদু আঁচে চুলায় বসিয়ে ঢেকে দিন। ৭-৮ মিনিট পর মাছগুলো উল্টে দিয়ে আবার ঢেকে দিন। মাখা মাখা হলে লেবুর খোসা ছড়িয়ে নামিয়ে নিন।

১১। আস্ত বেকড ইলিশ

উপকরণ :

১. ইলিশ মাছ ১টা, ২. লাল মরিচগুঁড়া ১ টেবিল-চামচ, ৩. পেঁয়াজবাটা ২ টেবিল-চামচ, ৪. টকদই ২ টেবিল-চামচ, ৬. লেবুর রস ১ টেবিল-চামচ, ৭. ভিনেগার ১ টেবিল-চামচ, ৮. সরিষার তেল ৩-৪ টেবিল-চামচ, ৯. লবণ পরিমাণমতো, ১০. কাঁচা মরিচ (চপ করা) ৩-৪টি, ১১. আদার রস ১ টেবিল-চামচ, ১২. তন্দুরি মসলা ১ চা-চামচ, ১৩. অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল

প্রণালি :

আস্ত মাছকে ছুরি দিয়ে চিরে দিন, যাতে মসলা ভেতরে যেতে পারে। এবার লবণ মাখিয়ে এক ঘণ্টা রেখে দিন। বাটিতে সব মসলা মাখিয়ে নিন। মাখানো মসলা মাছের দুই পাশে ভালোভাবে লাগিয়ে ফয়েলের উপর রেখে ফয়েলটি মুড়িয়ে নিন। আভেন ফ্রি হিট করে ১৮০ ডিগ্রি তাপমাত্রায় ৩০-৪০ মিনিট বেক করে নামিয়ে নিন। লেবু চাক চাক করে কেটে, মাছের চিড়ে নেওয়া জায়গাগুলোতে ঢুকিয়ে পরিবেশন করুন।

১২। কাঁটা গলানো ইলিশ

উপকরণ :

১. ইলিশ মাছের টুকরা ৬-৮টি, ২. হলুদগুঁড়া সামান্য, ৩. মরিচগুঁড়া ১ চা-চামচ, ৪. লবণ পরিমাণমতো, ৫. টকদই ২ টেবিল-চামচ, ৬. আদাবাটা কোয়ার্টার চা-চামচ, ৭. কাঁচা মরিচ ৬-৭টি, ৮. তেল কোয়ার্টার কাপ, ৯. পানি ১ কাপ

প্রণালি :

বাটিতে মাছের সঙ্গে সব উপকরণ মাখিয়ে ২-৩ ঘণ্টা রেখে দিন (পানি বাদ দিয়ে)। চুলার উপর প্রেশারকুকার বসিয়ে মেরিনেট করা মাছ ও পানি দিয়ে মৃদু আঁচে কুকারের ঢাকনা লাগিয়ে ২৫ মিনিট রেখে দিন। ২৫ মিনিট পর মাছের কাঁটাগুলো নরম হয়ে যাবে। কুকার থেকে মাছের টুকরোগুলো না ভেঙে সাবধানে তুলে নিয়ে পরিবেশন করুন। সাধারণ হাঁড়িতে ১ ঘণ্টা রান্না করতে হবে।

১৩। স্মোকড ইলিশ

উপকরণ :

১. ইলিশ মাছের টুকরা ৬-৮টি, ২. হলুদগুঁড়া সামান্য, ৩. মরিচগুঁড়া আধা চা-চামচ, ৪. লবণ পরিমাণমতো, ৫. টমেটো সস ১ চা-চামচ, ৬. ভিনেগার ১ চা-চামচ, ৭. আদাবাটা ১ চা-চামচ, ৮. পেঁয়াজবাটা ২ টেবিল-চামচ, ৯. তেল কোয়ার্টার কাপ, ১০. কাঠকয়লা ও ফয়েল

প্রণালি :

একটি কড়াইতে মাছের সঙ্গে সব উপকরণ মাখিয়ে ২-৩ ঘণ্টা রেখে দিন। কড়াইটি চুলার উপর বসিয়ে মৃদু আঁচে ঢেকে দিন ১ ঘণ্টা। ঝোল শুকিয়ে একটু পোড়া ভাব হলে নামিয়ে নিন। মাছের টুকরোগুলো আলতো করে তুলে (ঝোলসহ) কাচের ঢাকনাসহ বাটিতে রাখুন। এবার ফয়েলের বাটি বানিয়ে কাচের বাটিতে (মাছের উপর) রেখে, কয়লা চুলার উপর দিয়ে লাল করে ফয়েলের বাটির উপর রাখুন। এবারে সামান্য ঘি, লাল করা কয়লার উপর দিয়ে স্মোক করে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন। কয়েক মিনিট রেখে ঢাকনা খুলে কাঠকয়লা ও ফয়েল ফেলে পরিবেশন করুন।

১৪। ইলিশ ভিন্দালু

উপকরণ :

১. ৪৫০ গ্রাম ইলিশ স্টেক, ২. সিকি কাপ কুচি পেঁয়াজ, ৩. ১ চা-চামচ হলুদ গুঁড়া, ৪. আধা চা-চামচ লাল মরিচের গুঁড়া, ৫. ১ চা-চামচ ধনে গুঁড়া, ৬. ২টি কাঁচা মরিচ, ৭. সিকি কাপ রান্নার তেল, ৮. লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি :

সব গুঁড়া মসলা আধা কাপ পানিতে মেশান। গরম তেলে পেঁয়াজ দিন। এবার পানিতে গোলানো মসলা দিয়ে ২ মিনিট রান্না করুন। এবার এতে ৩ কাপ পানি, লবণ ও মাছ দিয়ে ঢেকে দিন। ফোটানো পানি না কমে আসা পর্যন্ত¯ রাখুন। আগুনের আঁচ থেকে নামানোর ৮ মিনিট আগে কাঁচা মরিচ দিয়ে দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *